বিস্তারিত
  • বিশ্বনাথে প্রবাসীর ব্রিটিশ পাসপোর্টসহ মালামাল চুরি


    বিশ্বনাথ বিডি ২৪ || ১৮ মার্চ, ২০২০, ৮:১৩ অপরাহ্ণ || বিশ্বনাথ


    বিশ্বনাথ বিডি ২৪ :- বিশ্বনাথে যুক্তরাজ্য প্রবাসীর বসত ঘরের জানালার গ্রীল কেটে চুরি সংঘঠিত হয়েছে। বুধবার (১৭ মার্চ) দিবাগত সন্ধ্যা রাতে উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়নের ইসবপুর গ্রামে যুক্তরাজ্য প্রবাসী ওয়াতির আলীর বাড়িতে এঘটনা ঘটে। এসময় চুরেরা প্রবাসীর ব্রিটিশ পাসপোর্ট, স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকাসহ মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়।
    এঘটনায় ওয়াতির আলী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে বুধবার রাতেই ইসবপুর গ্রামের আপ্তাব আলীর পুত্র জাহেদ (২২) ও আব্দুল মতিন (৪৩)’কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ। কিন্ত চুরির ঘটনায় জড়িত থাকার কোন তথ্য প্রমাণ না পাওয়ায় পরবর্তীতে থানা থেকে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়।
    থানায় দায়েরকৃত মামলার এজাহারে বাদী ওয়াতির আলী উল্লেখ করেন, তিনি চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার কটালপুর নোয়াগাঁও গ্রামের আব্দুল করিমের মেয়ে লাকি আক্তারকে বিয়ে করেন। বিয়ের দ্ইু দিন পূর্বে ইসবপুর গ্রামের জাহেদকে সঙ্গে নিয়ে ওয়াতির আলীর বাড়িতে যান ছাতক উপজেলার দিঘলী গ্রামের জনৈক যুবক তারেক আহমদ। তখন তারা ওয়াতির আলীকে জানান তার হবু স্ত্রী লাকি আক্তারের সঙ্গে তারেক আহমদের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। এমতাবস্থায় যদি লাকিকে ওয়াতির বিয়ে করেন তাহলে তাকে ভবিষ্যতে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন তারেক। লাকি আক্তার প্রেমের সম্পর্ক অস্বীকার করলে বিয়ের আগের দিন তার পরিবারের লোকজন তারেকের বাড়িতে যান। তখন তারেক মোবাইল ফোনে ওয়াতিরকে বলেন এ বিয়েতে তার কোন আপত্তি নেই। কিন্ত বিয়ের পর থেকে তারেক বিভিন্ন সময়ে ওয়াতির আলীকে খুন জখমের হুমকি দিয়ে আসছে।
    বুধবার বিকেলে ওয়াতির তার বড় ভাই বাতির আলীকে বাড়ি দেখাশুনার দায়িত্ব দিয়ে স্ত্রী লাকিকে নিয়ে শশুর বাড়িতে যান এবং সেখানে স্ত্রীকে রেখে তিনি সুনামগঞ্জ শহরে বোনের বাসায় যান। ওই দিন বাড়ি একা পেয়ে সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১০টার মধ্যে কোন এক সময় চোরেরা ওয়াতির আলীর বসত ঘরের জানালার গ্রিল কেটে ভিতরে প্রবেশ করে। এসময় চোরেরা ঘরের আলমারী ভেঙ্গে একটি ব্রিটিশ পাসপোর্ট, তিন ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার, নগদ ৫৫হাজার টাকা সহ জায়গা-জমির দলিল ও ব্যাংকের চেক বহি চুরি করে নিয়ে যায়। রাত ১০টায় বাতির আলী ঘরে প্রবেশ করে দেখতে পান ঘরের জিনিসপত্র ভাঙ্গা ও এলোমেলোভাবে পড়ে আছে এবং ওয়াতির আলীর শয়নকক্ষে একটি রামদা ও একটি দা পাওয়া যায়। খবর পেয়ে রাতেই থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং সন্দেহজনক অভিযুক্ত জাহেদ ও তার ভাই আব্দুল মতিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসে। পূর্ব বিরোধের জের ধরে লাকি আক্তারের সাবেক প্রেমিক তারেক এবং তার সহযোগি জাহেদ ও মতিন এই চুরির ঘটনা ঘটাতে পারে এমনটাই সন্দেহ করছেন বলে মামলার এজাহারে বাদী ওয়াতির আলী উল্লেখ করেন।
    মামলা দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মো. শামীম মুসা সাংবাদিকদের বলেন, সন্দেহজনক দুই জনকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। কিন্ত ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কোন তথ্য প্রমাণ না পাওয়ায় তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের গ্রেফতার ও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।



সর্বশেষ খবর


নিউজ খুঁজুন
আর্কাইভ
ফেইসবুক পেইজ